আইয়ুব খান কিভাবে ক্ষমতা দখল করেন?

আইয়ুব খান কিভাবে ক্ষমতা দখল করেন?

পাকিস্তান দক্ষিণ এশিয়ার একটি উন্নয়নশীল রাষ্ট্র। ১৯৪৭ সালে ১৪ আগস্ট পাকিস্তান ব্রিটিশদের নিকট থেকে স্বাধীনতা অর্জন করে। বিশ্বের অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশের মতোই পাকিস্তানে রয়েছে বহুবিধ সমস্যা। স্বাধীনতার দীর্ঘ সময় পার হলেও এখানে গণতান্ত্রিক নীতি-আদর্শ তেমন বিকশিত হয় নি। ব্যাপক দারিদ্র্যের পাশাপাশি নিম্নমানের রাজনৈতিক সংস্কৃতি পাকিস্তানের অন্যতম বৈশিষ্ট্য। আর এরই সুযোগ গ্রহণ করে যে দেশের ক্ষমতালোলুপ সামরিক বাহিনী। অধিকাংশ সময়ই এদেশ থেকেছে সামরিক বাহিনীর প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ নিয়ন্ত্রণ।

আইয়ুব খানের ক্ষমতা দখলঃ পাকিস্তানের রাজনীতিতে আইয়ুবের শাসনামল ছিল খুবই ঘটনাবহুল। ১৯৫৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে যখন পূর্ব পাকিস্তান প্রাদেশিক পরিষদের ডেপুটি স্পিকার শাহেদ আলী অধিবেশন চলাকালে দৈহিক আক্রমণের শিকার হন ও মৃত্যুবরণ করেন এবং আরো কতিপয় বিশৃঙ্খল অবস্থার সৃষ্টি হয় তখন এরই সুযোগে প্রেসিডেন্ট ইস্কান্দার মির্জা ১৯৫৮ সালের ৭ অক্টোবর সমগ্র পাকিস্তানে সামরিক আইন জারি করেন এবং জেনারেল আইয়ুব খানকে প্রধান সামরিক আইন প্রশাসক হিসেবে নিযুক্ত করেন। এছাড়া তাকে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ঘোষণা দেন। কিন্তু সুচতুর আইয়ুব খান তাতে পরিতৃপ্তি লাভ করেন নি। পাকিস্তানে সামরিক শাসন জারির মাত্র ২০ দিন পর তিনি আর এক অভ্যুত্থান ঘটান। তিনি প্রেসিডেন্ট ইস্কান্দার মির্জাকে পদচ্যুত করেন এবং নিজেই পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট হিসেবে অধিষ্ঠিত হন। রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হয়ে তিনি নিজস্ব ধ্যান-ধারণা থেকে শাসনকার্য্ পরিচালনা এবং নিজ ক্ষমতাকে স্থায়ী করতে বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করেন।

পাকিস্তানের রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল করে সুচতুর আইয়ুব খান ছলে-বলে-কৌশলে ১৯৬৯ সাল পর্যন্ত পাকিস্তানের ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত ছিলেন। বিরোধীদের দমন, পীড়ন, মৌলিক গণতন্ত্রের উদ্ভব, দ্বিতীয় সংবিধান রচনা, দ্রব্যমূল্যের স্থিতাবস্থা, ১৯৬৫ সালের পাক-ভারত যুদ্ধ তার শাসনামলের উল্লেখযোগ্য দিক।  

আইয়ুব খানের পরিচয়
আইয়ুব খান

পাকিস্তানের রাজনৈতিক ইতিহাসে আইয়ুব খান একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ নাম। তিনি ছিলেন একজন উচ্চাভিলাষী পাঠান। তিনি ছিলেন ব্রিটেনের স্যান্ডহার্স্ট (Sandhurst) থেকে আরো পড়ুন

তিতুমীরকে বাংলার স্বাধীনতার অগ্রনায়ক বলা হয় কেন?

ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলন-সংগ্রামের ইতিহাসে যে কয়জন কীর্তিমান পুরুষের নাম চিরস্মরণীয় হয়ে আছে তাদের মধ্যে তিতুমীর ছিলেন অন্যতম। অসীম সাহসী ও আরো পড়ুন

দেওয়ানি বলতে কি বুঝায়?

ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি কর্তৃক বাংলা, বিহার ও উড়িষ্যার দেওয়ানি লাভ বাংলা তথা ভারতীয় উপমহাদেশে কোম্পানি তথা ব্রিটিশ আধিপত্য প্রতিষ্ঠার ইতিহাসে আরো পড়ুন

নবাব সলিমুল্লাহর পরিচয়
নবাব সলিমুল্লাহর পরিচয়

বাংলার রাজনীতিতে ঢাকার নবাব স্যার সলিমুল্লাহ এক অনবদ্য ব্যক্তিত্ব। বিশেষ করে বাংলার মুসলমানদের সামগ্রিক উন্নয়নে নবাব সলিমুল্লাহর অবদান ছিল অনস্বীকার্য্য। আরো পড়ুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।