কাশ্মীর সমস্যার সূচনা

কাশ্মীর সমস্যার সূচনা

দক্ষিণ এশীয় শান্তি ও নিরাপত্তার ক্ষেত্রে কাশ্মীর সমস্যা এক বিরাট হুমকিস্বরূপ। ১৯৪৭ সালে ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শাসন থেকে মুক্ত হয়ে ভারত ও পাকিস্তান স্বাধীনতা অর্জন করে। স্বাধীনতার পর কাশ্মীরের অধিকার নিয়ে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে বিরোধ বাধে। স্বাধীনতার পর এই দুটি দেশ ৪ বার যুদ্ধে লিপ্ত হয়েছে। যার ৩টি হলো কাশ্মীরকেন্দ্রিক। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন কাশ্মীর সমস্যাকে বিশ্বের সবচেয়ে বিপজ্জনক ইস্যু হিসেবে অভিহিত করেছেন।  

কাশ্মীরের ইতিহাসঃ প্রাক-ইসলাম যুগে কাশ্মীর হাজার হাজার বছর ধরে হিন্দু রাজন্যবর্গ কর্তৃক শাসিত হয়।খ্রিস্টীয় দ্বিতীয় শতকের শেষার্ধে এটি উত্তর ভারতের কুশান বংশের সুবিশাল রাজত্বের একটি অংশ ছিল বলে জানা যায়। এক সময় হূন শাসকগণ কাশ্মীর দখল করেন। মুসলমানদের সিন্ধু বিজয়ের পর এখানের ইসলাম ধর্ম প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৮৬৪ সালে অমৃতসর চুক্তি অনুযায়ী ব্রিটিশ সরকার ৭৫ লাখ টাকার বিনিময়ে গলাব সিং নামক হিন্দু জমিদারের নিকট কাশ্মীর বিক্রি করেন।

কাশ্মীর সমস্যার সূচনাঃ কাশ্মীর সমস্যার সূচনা ঘটে ১৯৪৭ সালে। ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শাসকরা ধর্মের উপর ভিত্তি করে মুসলিম অধ্যুষিত এলাকা নিয়ে পাকিস্তান এবং হিন্দু এলাকা নিয়ে ভারত গঠন করলেও মুসলিম অধ্যুষিত এলাকা কাশ্মীরের ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত দেয় নি। এ সময় হরিসিং ছিলেন কাশ্মীরের শাসনকর্তা। তিনি নিরপেক্ষ স্বায়ত্তশাসিত শাসন প্রতিষ্ঠা করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু নেহেরু ও জিন্নাহ এতে বিরাগভাজন হন। ১৯৪৭ সালের আগস্ট ও সেপ্টেম্বর মাসে কাশ্মীরের ইসলামি দলগুলো পাকিস্তানের সাহায্যে হিন্দু রাজার বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করলে হরিসিং ভারতের সামরিক বাহিনীর সহায়তা কামনা করেন। কাশ্মীর ভারতের সাথে যোগ দেওয়ার শর্তে ভারত সামরিক সহায়তা প্রদানে রাজি হয়। এ নিয়ে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে কাশ্মীর সমস্যার সূচনা হয়। ১৯৪৭ সালের ২৪-২৭ অক্টোবর ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে যুদ্ধ শুরু হয়। যুদ্ধে ভারত কাশ্মীরের দুই-তৃতীয়াংশ এবং পাকিস্তান এক তৃতীয়াংশ দখল করে। জাতিসংঘের মধ্যস্থতায় যুদ্ধ বিরতি হয়। ১৯৬৫ সালে কাশ্মীরকে কেন্দ্র করে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে যুদ্ধ সংঘটিত হয়। এ দুটি দেশ কাশ্মীরের এক ইঞ্চি পরিমাণ জমি ছাড়তে অপারগতা প্রকাশ করে। কাশ্মীর সমস্যা নিয়ে পাক-ভারত তৃতীয় যুদ্ধ সংঘটিত হয় ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র হুঁশিয়ারি দেয় ভারত যদি পাকিস্তানে হামলা চালায়, তাহলে যুক্তরাষ্ট্র ভারতের উপর পাল্টা হামলা চালাবে। এতে ইন্দিরা গান্ধী যুদ্ধ বন্ধের ঘোষণা দেন।

কাশ্মীর সমস্যার সূচনা হয়েছিল ভারত ও পাকিস্তান স্বাধীনতা লাভের পর থেকে। ১৯৯০ সালে কাশ্মীর স্বাধীনতা আন্দোলনে উজ্জীবিত হয়। এতে ভারতের দমন নীতি বেড়ে যায়। যার ফলে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। ব্রিটিশরা স্বাধীনতা দেওয়ার সময় যদি কাশ্মীর বিষয়ে সঠিক সমাধান দিত, তাহলে কাশ্মীর নিয়ে জটিল সমস্যার সূচনা ঘটত না।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।