মুজারাব কি?

মুজারাব

উমাইয়া শাসনামলে মুজারব নামক এক শ্রেনীর লোকের আবির্ভাব ঘটে। তারা আরবীয় কাব্যের প্রতি অত্যধিক অনুরক্ত হয়েছিল। বিশেষ করে যুবক শ্রেণী আরবি ভাষার মাধ্যমে আরবি দর্শন, সাহিত্য ও ইসলাম ধর্মের সাথে সুপরিচিত হয়ে উঠেছিল। ইসলামের অনুশাসনের প্রতি মুজারাবদের এই আসক্তির ফলে ধর্মান্ধ খ্রিস্টানগণ প্রকাশ্যে ইসলাম বিরোধী আন্দোলন শুরু করে।

মুজারাবঃ উমাইয়া শাসনামলে স্পেনের একদল খ্রিস্টান ইসলাম ধর্ম গ্রহণ না করে আরবদের শিক্ষা সংস্কৃতি ও ভাবধারায় মুগ্ধ হয়ে আরবি ভাষা ও আরবদের রীতি-নীতি অনুকরণ করতে থাকে। স্পেনের ইতিহাসে তারা মুজারাব নামে পরিচিত। আবার অনেক খ্রিস্টান ইসলাম ধর্মও গ্রহণ করেন। তারা নিজেদের শিল্প, সাহিত্য ও জ্ঞান-বিজ্ঞানের দৈন্যতা সম্পর্কে অবহিত ছিল এবং বিকাশমান আরবীয় জ্ঞান-বিজ্ঞানের প্রতি এতই আকৃষ্ট হয়েছিল যে, তারা ধর্মীয় বিশ্বাসের দিক দিয়ে ইসলাম পন্থী না হলেও রীতি-নীতি ও আচার অনুষ্ঠানের দিক দিয়ে আরবীয় হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু মনে প্রাণে তারা তাদের পিতৃপুরুষের খ্রিস্টান ধর্ম ত্যাগ করেনি। কর্ডোভা, সেভিল তলেডো, সারাগোসা প্রভৃতি গুরুত্বপূর্ণ শহরে এসব মুজারাবদের সংখ্যা ক্রমশ উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পেয়েছিল। খ্রিস্টান লেখকদের মতে, “স্পেনীয়রা তাদের মাতৃভাষাকে ভুলে যেতে বসেছিল এবং তার মূলে আরবি ভাষার প্রতি এতটা আসক্ত হয়ে উঠেছিল যে, তারা আরবিতে চমৎকার নিবন্ধ ও কাব্য রচনা করতে অভ্যস্ত হয়েছিল। তারা আরবীয় কাব্যের প্রতি অত্যধিক অনুরক্ত হয়েছিল। বিশেষ করে যুবক শ্রেণী আরবি ভাষার মাধ্যমে আরবি দর্শন, সাহিত্য ও ইসলাম ধর্মের সাথে সুপরিচিত হয়ে উঠেছিল। আরবীয় ভাবধারা ও ইসলামের অনুশাসনের প্রতি মুজারাবদের এই আসক্তির ফলে ধর্মান্ধ খ্রিস্টানগণ প্রকাশ্যে ইসলাম বিরোধী আন্দোলন শুরু করে।

স্পেনে মুসলমানদের বিরুদ্ধে খ্রিস্টানদের এ আন্দোলন ছিল একটি অভিনব আন্দোলন। ধর্মান্ধগণ মুজারাবদের প্রতি তীব্র ঘৃনা পোষণ করত এবং তাদেরকে নাস্তিক বলে অভিহিত করত।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।