মুসা-বিন-নুসাইর কে?

খলিফা-আল-ওয়ালিদের রাজত্বকালে উত্তর আফ্রিকার শাসনকর্তা ও গভর্ণর ছিলেন মুসা-বিন-নুসাইর। বার্বারদের তিনি পরাজিত ও বিধ্বস্ত করে আটলান্টিক উপকূল পযর্ন্ত মুসলিম কর্তৃত্ব সম্প্রসারিত করেন। তিনি ভূমধ্যসাগরে গোলযোগ সৃষ্টিকারী রোমানদের বিরুদ্ধে অভিযান প্রেরণ করেন। শক্তিশালী আরব নৌ বাহিনীর সাহায্যে মুসা-বিন-নুসাইর ভূ-মধ্যসাগরে স্পেনের উপকূলে মিনকা ও মেজকা দ্বীপ দুটো দখল করেন। ভূ-মধ্যসাগর এবং বর্তমান মরক্কো পযর্ন্ত উত্তর আফ্রিকার বিস্তৃর্ণ অঞ্চলে মুসলিম কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠার ফলে মুসলিম বাহিনীর পক্ষে স্পেন বিজয় সহজতর হয়।

স্পেন বিজয়ঃ স্পেনে মুসলিম আধিপত্য বিস্তার ইসলামের ইতিহাসে একটি গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা। মুসা-বিন-নুসাইর এবং তারিখ ইবন জিয়াদের মত অভিজ্ঞ এবং তেজস্বী সেনাপতিদের অবদান ছিল অপরিসীম। অন্যথায় মাত্র চার বছরে সমগ্র স্পেন এবং পীরেনীজের উত্তর-পূর্বে ফ্রান্সে মুসলিম বাহিনী সফলভাবে অভিযান করতে পারত না। ৭১১ খ্রিস্টাব্দ থেকে ৭১৪ খ্রিস্টাব্দের মধ্যে প্রায় সমগ্র খ্রিস্টান অধ্যুষিত স্পেন মুসলমানদের দখলে আসে। ইতিমধ্যে খলিফা ওয়ালিদ ঝুঁকিপূর্ণ সামরিক অভিযান থেকে বিরত থাকার জন্য মুসাকে নির্দেশ দেন এবং তাকে দামেস্কে প্রত্যাবর্তন করতে বলেন। ৭১৪ খ্রিস্টাব্দে সেপ্টেম্বর মাসে তিনি দামেস্কের পথে রওয়ানা হন। ৭১৫ খ্রিস্টাব্দের ফ্রেব্রুয়ারি মাসে দামেস্কে পৌছে তিনি আল-ওয়ালিদকে অসুস্থ দেখতে পান। রাজধানীতে আগমনের পূর্বে শাহজাদা সুলায়মান মুসাকে আল-ওয়ালিদের মৃত্যু পযর্ন্ত অপেক্ষা করতে আদেশ দেন। কিন্তু খলিফার নির্দেশ অনুযায়ী তিনি রাজধানীতে আগমন করলে সুলায়মান তার উপর অসন্তুষ্ট হন। সিংহাসনে আরোহণ করে সোলায়মান মুসার প্রতি র্দুব্যবহার করেন। তাকে প্রকাশ্যে অবমাননা করা হয়।

স্পেন বিজয়ের গৌরবের অধিকারী মুসা ৭৮ বছর বয়সে ৭১৬ খ্রিস্টাব্দে অত্যন্ত শোচনীয় অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন।

আইন-ই-জালুতের যুদ্ধ কি?

আইন-ই-জালুতের যুদ্ধ পৃথিবীর ভাগ্য নিয়ামক যুদ্ধগুলোর অন্যতম। ১২৬০ সালের ৩ সেপ্টেম্বর আইন-ই-জালুত প্রান্তরে মোঙ্গল বাহিনী ও কুতুবের বাহিনী পরস্পরের সম্মুখীন আরো পড়ুন

কুরাইশদের বাজপাখী বলা হয় কেন?

স্পেনে স্বাধীন উমাইয়া আমিরাতের প্রতিষ্ঠা আবদুর রহমান আদ-দাখিলকে ‘কুরাইশদের বাজপাখী’ (Falcon of the Quraish) বলা হয়। আব্বাসীয় খলিফা আল মনসুর আরো পড়ুন

টুরস এর যুদ্ধ

টুরসের যুদ্ধ স্পেনের মুসলমানদের ইতিহাসে একটি ভাগ্য নির্ধারণকারী যুদ্ধ হিসেবে চিহ্নিত। এ যুদ্ধ ইসলামের ইতিহাসে যুদ্ধ নামের এক কলঙ্ক তিলক। আরো পড়ুন

সাজার-উদ-দার কে?

সাজার-উদ-দার ছিলেন মিশরের মামলুক বংশের প্রতিষ্ঠাতা। মামলুক শব্দের অর্থ ক্রীতদাস। মহান সালাহ উদ্দিনের মৃত্যুর পর মুসলিম জাহানের মহাদুর্দিনে মামলুকরা ইসলামকে আরো পড়ুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।