সমবায় আন্দোলন

পারস্পরিক সহযোগিতার ভিত্তিতে আর্থিক অবস্থার উন্নয়ন সাধনে সমবায়ের ভূমিকা অপরিসীম। সমবায়ের মূলমন্ত্র হলো ‘সকলের তরে সকলে মোরা প্রত্যেকে আমরা পরের তরে’। একের জন্য যা করা কষ্টকর দশের জন্য তা একেবারে সহজ। তাই সমাজের সকল লোক মিলে আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের জন্য সমবায় আন্দোলন গড়ে তোলে। সমবায় কেবল একটি প্রতিষ্ঠানই নয়, বর্তমানে এটি একটি আন্তর্জাতিক আন্দোলন হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করেছে। এই আন্দোলন অর্থনৈতিক মুক্তির আন্দোলন।

সমবায় আন্দোলনঃ ‘সমবায়’ শব্দটির অর্থ হচ্ছে মিলেমিশে কাজ করা এবং একে অপরের কাজে সহযোগিতা করা। সমবায় হলো এমন একটি প্রতিষ্ঠান যার মাধ্যমে কিছু সংখ্যক লোক নিজেদের আর্থিক উন্নতিকল্পে স্বেচ্ছাপ্রণোদিত হয়ে সমঅধিকারের ভিত্তিতে পারস্পরিক সহযোগিতার মাধ্যমে কাজ করে। অন্যভাবে বলা যায়, এটি এমন এক আইনানুগ সংগঠন যার যাহায্যে কোনো এলাকার একই পেশা বা অবস্থার মানুষ আত্মসাহায্য ও পারস্পরিক সহায়তার ভিত্তিতে স্বেচ্ছায় একত্রিত হয়ে তাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের প্রচেষ্টা চালায়।

সমবায় মূলত সমাজের নিম্নবিত্ত ও নিম্ন মধ্যবিত্ত কতিপয় ব্যক্তির স্বেচ্ছাপ্রতিষ্ঠিত সংগঠন। উল্লিখিত মূলনীতিসমূহ সমবায়কে এর লক্ষ্যার্জনে বিভিন্নভাবে সাহায্য করে। এতে দেশের সাধারণ মানুষের সামাজিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও মানসিক উন্নতি সাধিত হয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।