হাবিব আল-মনসুর কে?

স্পেনের উমায়া শাসনের এক সংকটময় মুহূর্তে ধূমকেতুর ন্যায় আবির্ভূত হয়েছিল হাবিব-আল-মনসুর। তার প্রকৃত নাম ছিল আবু আমির মুহাম্মদ। ৯৪২ খ্রিস্টাব্দে প্রাচীন আরব বংশোদ্ভূত মৌফি গোত্রে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। প্রশাসনিক দক্ষতা ও মেধার বলে তিনি অতি দ্রুত বিভিন্ন পদ অলঙ্কৃত করে হাবিব বা প্রধানমন্ত্রী উপাধিতে ভূষিত হন।

ক্ষমতা লাভঃ কর্ডোভা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইন শাস্ত্রে কৃতিত্বের সাথে উত্তীর্ণ হয়ে কর্ডোভা আদালতে কর্মরত বিচারক আল সলিমের অধীনে নিম্ন কর্মচারী হিসেবে তিনি নিয়োজিত হন। তার গুণের পরিচয় পেয়ে দ্বিতীয় হাকাম তাকে আমির বিহীন কয়েকটি অঞ্চলের “অছি” এর পদ প্রদান করেন।

“অছি” পদে অধিষ্ঠিত থাকাকালীন সময়ে তিনি কৃতিত্বের পরিচয় দেন। অচিরেই তিনি খলিফা হাকামের মহিয়সী মুলতান সুবাহার সাথে পরিচিত হন। ৯৬৭ খ্রিস্টাব্দে খলিফা হাকাম তাকে নিজ জ্যৈষ্ঠ পুত্র আব্দুর রহমানের তত্ত্বাবধায়ক নিযুক্ত করেন। অবশ্য জ্যৈষ্ঠ পুত্র আব্দুর রহমান অকালে মারা যান। অতঃপর তিনি সুলতানা সুবাহার প্রাতিষ্ঠানিক তত্ত্বাবধায়ক এবং কর্ডোভার টাকশালের তত্ত্বাবধায়ক নিযুক্ত হন। ৯৬৮ খ্রিস্টাব্দের ডিসেম্বর মাসে তিনি পরিত্যক্ত সম্পত্তির তত্ত্বাবধায়ক এবং পর বৎসর সেভাইল লিভনার কাজির পদ প্রাপ্ত হন। তিনি মৌরতানিয়ার অর্থ দপ্তর ও বিচারকের পদ অলঙ্কৃত করেন। এ সমস্ত পদে অধিষ্ঠিত থাকার ফলে তিনি বিপুল সম্পত্তির অধিকারী হন। অল্প কিছু দিনের মধ্যেই তিনি যোগ্যতা ও খলিফার অনুগ্রহ নিয়ে পরপর পাঁচ হতে ছয়টি গুরুত্বপূর্ণ পদ লাভ করেন। খলিফা হাকাম মৃত্যুকালে আবু আমীরকে তার নাবালক পুত্র হিশামের তত্ত্বাবধায়ক নিযুক্ত করেন। খলিফা হিশাম সিংহাসনে আরোহণ করলে তিনি তার প্রধান উজির নিযুক্ত হন এবং কূটনৈতিক চাল চেলে আস্তে আস্তে সমস্ত ক্ষমতা কুক্ষিগত করতে থাকেন।

সমসাময়িক বিখ্যাত ব্যক্তিদের মধ্যে হাবিব-আল-মনসুর ছিলেন অন্যতম। তিনি স্পেনের উমাইয়া সাম্রাজ্যকে দোদুল্যমান অবস্থা থেকে রক্ষা করার গৌরব অর্জন করেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।