কৃষক আন্দোলন কি?

Krishi Andolon

কৃষক আন্দোলন ছিল বাংলার কৃষক সম্প্রদায়ের ন্যায্য অধিকার রক্ষার সংগ্রাম। আবহমানকাল ধরে বাংলার কৃষকরা ভূমিতে তাদের শ্রমশক্তি নিয়োগ করে নিজেদের উদরপূর্তিসহ দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলছিল। কিন্তু বাংলায় ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির আধিপত্য প্রতিষ্ঠার পর থেকে কোম্পানি সরকারের ভূমি রাজস্ব নীতি ও তাদের সৃষ্ট স্বার্থান্বেষী ও সুবিধাভোগী জমিদার শ্রেণীর অত্যাচার ও শোষণের শিকার হয়ে বাংলার কৃষককুল সর্বস্বান্ত হয়েছে বারবার। কিন্তু শেষ পযর্ন্ত দেয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়া কৃষককুল তাদের জীবন ও জীবিকার তাগিদে কোম্পানির অন্যায় রাজস্ব নীতি ও জমিদারদের শোষণের বিরুদ্ধে আন্দোলনমুখর হয়ে উঠেছে। এ সকল কৃষক আন্দোলনের মধ্যে তেভাগা আন্দোলন ছিল অন্যতম যেখানে গ্রামীণ বিভিন্ন শ্রেণীর ভূমিকা বিশেষভাবে লক্ষ্যণীয়।

কৃষক আন্দোলনঃ কৃষক আন্দোলন ছিল কৃষকদের ন্যায়সংগত অধিকার রক্ষার এক সংঘবদ্ধ আন্দোলন। ১৭৬৫ সালে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি কর্তৃক বাংলা, বিহার ও উড়িষ্যার দেওয়ানি লাভের মধ্য দিয়ে এদেশের কৃষক শ্রেণীর উপর যে নির্যাতন-নিপীড়ন নেমে আসে ১৭৯৩ সালে চিরস্থায়ী বন্দোবস্ত প্রবর্তনের মাধ্যমে তা প্রাতিষ্ঠানিক ভিত্তি লাভ করে। রাজস্ব শাসনের অধিকার লাভের পর থেকে কোম্পানির অবিরাম রাজস্ব বৃদ্ধির নীতি, রাজস্ব আদায়ে জমিদার, ইজারাদার প্রভৃতি রাজস্ব আদায়কারীদের নানা উৎপীড়নে কৃষক শ্রেণী প্রতি নিয়ত বিপর্য্স্ত হতে থাকে। কোম্পানির অযাচিত ভূমি রাজস্ব বৃদ্ধির প্রবণতা এবং ভূম্যাধিকারী শ্রেণীর অত্যাচারে জর্জরিত কৃষককুল তাদের ন্যায়সংগত অধিকার প্রতিষ্ঠা ও রক্ষার জন্য বাংলার বিভিন্ন অংশে যে সংগঠিত আন্দোলন গড়ে তোলে তা সাধারণভাবে কৃষক আন্দোলন নামে খ্যাত। বাংলায় সংগঠিত এ সকল কৃষক আন্দোলনের মধ্যে ১৭৮৩ সালের রংপুর কৃষক বিদ্রোহ, ১৭৮৯ সালের বিষ্ণুপুরের কৃষক বিদ্রোহ, পাবনার কৃষক বিদ্রোহ, তেভাগা আন্দোলন, নাচোলের কৃষক বিদ্রোহ প্রভৃতি ছিল উল্লেখযোগ্য। কৃষক আন্দোলন ছিল কোম্পানির ভূমি রাজস্ব, শোষণ ও জমিদার জোতদারদের অত্যাচর ও উৎপীড়নের বিরুদ্ধে এক প্রতিবাদী আন্দোলন। অপশক্তির বিরুদ্ধে দীর্ঘদিনের পুঞ্জীভূত ক্ষোভ ও অসন্তোষের এক বহ্নিশিখা ছিল কৃষক আন্দোলন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।